নিউজ ডেস্ক: পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের ১৬২টি ডিজিটাল সেবার উদ্বোধন করলেন পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী কর্নেল (অব.) জাহিদ ফারুক। রবিবার (৮ নভেম্বর) পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে আয়োজিত কেন্দ্রীয় মাইগভ প্ল্যাটফর্ম এই সেবা কার্যক্রম যুক্ত করা সংক্রান্ত অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক বলেন, ‘মাত্র দুই সপ্তাহে মন্ত্রণালয়ের ১৬২টি সেবাকে ডিজিটাল করা হয়েছে যা শুধু মন্ত্রণালয় নয়, পুরো বাংলাদেশের ডিজিটাল অগ্রযাত্রায় এক যুগান্তকারী অর্জন। মুজিববর্ষে এটা পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপহার। ভবিষ্যতে আমাদের ডিজিটাল সেবা আরও বাড়ানো হবে। প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্ব ও নির্দেশনায় ডিজিটাল সেবা যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে, আমি আশা করি, ২০২১ সালের মধ্যেই ডিজিটাল বাংলাদেশ এবং ২০৪১ সালের মধ্যে আমরা সমৃদ্ধশালী দেশে উন্নীত হবো।’

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী আগামী প্রজন্ম নিয়ে ভাবেন। আপনারা প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আস্থা রাখেন। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এবছর আমরা ঘূর্ণিঝড় ও বন্যার মোকাবিলা করেছি। সেবা ডিজিটাইজেশনে আমাদের কাজে আরও গতিশীলতা আনবে।’

মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কবির বিন আনোয়ারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম। এছাড়াও বিশেষ অতিথি হিসেবে অনলাইনে সংযুক্ত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম।

মন্ত্রণালয়ের প্রেস বিজ্ঞপ্তি জানানো হয়, মাইগভ প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের ৩৩টি এবং এর অধীনস্ত সংস্থাগুলোর ১২৯টিসহ মোট ১৬২টি সেবা ডিজিটাল সেবায় রূপান্তরিত করে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়কে ডিজিটাল মন্ত্রণালয়ে রূপান্তর করা হলো। এতে সহজেই ডিজিটাল পদ্ধতিতে সেবার আবেদন, সেবা সংশ্লিষ্ট পেমেন্ট, সেবার অগ্রগতি, প্রয়োজনীয় কাগজ দাখিল এবং সংশ্লিষ্ট অন্যান্য কার্যক্রম সেবাগ্রহীতা নিজে ৩৩৩ কল সেন্টারে কল করে, অথবা ডিজিটাল সেন্টারের মাধ্যমে সম্পাদন করতে পারবেন।

এছাড়া অনেকক্ষেত্রেই সেবা সংক্রান্ত তথ্যের অপ্রতুলতার জন্য সেবাগ্রহীতা এবং প্রদানকারী উভয়ের সময় ও অর্থের অপচয় হয়। অধিকন্তু, সেবার জন্য একাধিকবার একই স্থানে যাওয়া, অনেক দলিল দস্তাবেজের ব্যবহার ও সেবাগ্রহীতা শনাক্তকরণে জটিলতা ইত্যাদি জটিলতা প্রশাসনিক সেবা কাঠামোতো রয়েছে।

এই ব্যবস্থাপনার ফলে তথ্যপ্রাপ্তির আবেদন, ছুটির আবেদন, পিআরএল অনুমোদনের আবেদন, মাতৃত্বকালীন ছুটি, লিয়েন আবেদন, চাকরি স্থায়ীকরণ, বিভাগীয় মামলা, ইউটিলিটি বিলসহ ১৬২টি সেবা অনলাইনে পাওয়া যাবে। অধীনস্ত সংস্থাগুলোর মধ্যে পানি উন্নয়ন বোর্ডের ৩১টি, বাংলাদেশ হাওড় ও জলাভূমি উন্নয়ন অধিদফতরের ২১টি, পানিসম্পদ পরিকল্পনা সংস্থার ২৬টি, নদী গবেষণা ইনস্টিটিউটের ৩০টি, যৌথ নদী কমিশনের ২১টি সেবা মাইগভ প্ল্যাটফরমে যুক্ত হলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *